রোজার নিয়ত ও ইফতারের দোয়া

রোজা একটি ফরজ এবাদত।মহান আল্লাহ আমাদের প্রত্যেক টি রোজা রাখতে বলেছেন।রোজা রাখার জন্য প্রথমে রোজার নিয়ত করতে হয়।তো জেনে নিন রোজার নিয়ত। 

রোজা রাখার নিয়তঃ

বাংলা উচ্চারণঃআল্লাহুম্মা সুমতু লাকা, ওয়া তাওআক্কালতু আ‘লা রিঝক্বিকা, ওয়া আফতারতু বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রহিমীন

ইফতারের দোয়াঃ

বাংলা উচ্চারণঃআল্লাহুম্মা সুমতু লাকা, ওয়া তাওআক্কালতু আ‘লা রিঝক্বিকা, ওয়া আফতারতু বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রহিমীন।
বাংলা অর্থঃহে আল্লাহ! আমি তোমারই সন্তুষ্টির জন্য রোজা রেখেছি ও তোমারই দেয়া রিযিক দ্বারা ইফতার করছি।

রোজা ভঙ্গের কারণ সমূহঃ

  • ইচ্ছাকৃত ভাবে পানাহার করলে রোজা ভেঙ্গে যায়।
  • ইচ্ছাকৃত ভাবে কোনো খাবার খেলে।
  • পুরো রমজান মাস জুড়ে রোজার নিয়ত না করলে।
  • স্ত্রী সহবাস করলে রোজা ভেঙ্গে যায়।
  • সূর্যাস্ত হয়েছে মনে করে,ইফতার করার পর দেখা গেল সুর্যাস্ত হয়নি এমন হলে রোজা ভেঙ্গে যাবে।
  • দাঁত থেকে ছোলা পরিমান খাবার গিলে ফেললে।
  • ধুমপান করলে রোজা ভেঙ্গে যায়।
  • বমি গিলে ফেললে। 
  • রাত্রি আছে মনে করে সোবহে সাদিকের পর খাবার খেলে রোজা ভেঙ্গে যায়।
  • ইচ্ছাকৃতভাবে বীর্যপাত ঘটালে  রোজা ভেঙ্গে যায়।
  • মহিলাদের ঋতুস্রাব হলে।
  • ইনজেকশনের মাধ্যমে দেহে কিছু প্রবেশ করালে রোজা ভেঙ্গে যাবে।

যেসব কারনে রোজা মাকরুহ হয়ঃ

  • বিনা প্রয়োজনে কোনো কিছু দাঁত দিয়ে চিবালে।
  • যে কোনো ধরনের কয়লা, মাজন, বা তুথপেস্ট ব্যবহার করা মাকরুহ
  • গোসল করা ফরয তবে এই অবস্থায় গোসল না করে সারাদিন থাকলে রোজা  মাকরুহ হয়ে যায়।
  • কোন রোগীর জন্য নিজের রক্ত দিলে রোজা মাকরুহ হয়ে যায়।
  •  পিপাসার বা ক্ষুধা জন্য অস্থিরতা প্রকাশ করা।
  • রোজা রেখে গিবত, মিথ্যা ও সয়তানি করলে রোজা মাকরুহ হয়ে যায়।
  • থুথু একত্রিত করে গিলে ফেললে।
  •  বিনা প্রয়োজনে খাবারের স্বাদ দেখা।
সবাইকে শেয়ার করে সওয়াবের অংশীদার হন।

বিঃদ্রঃ এই ব্লগে বিভিন্ন কনটেন্ট,ভিডিও ও ছবি বিভিন্ন ওয়েবসাইট/বই থেকে নেওয়া হতে পারে।আমরা আপনার মূল্যবান কনটেন্ট,অন্যের উপকারের লক্ষে শেয়ার করে থাকি।তবে আপনার যদি কোনও আপত্তি থাকে,তাহলে আমাদের কাছে অভিযোগ করুন।আপনার কনটেন্ট সরিয়ে ফেলা হবে।
insurance bd,Online education,insurance,Online education, bkash,nagod,mobile banking bd