ব্যাকলিংক কি কেন তৈরি করার উপায়।ব্যাকলিংক সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা


বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম

অবশ্যই সম্পুর্ণ লেখাটি পড়বেন,
সম্পুর্ণ লেখাটি পড়লে বুঝতে সুবিধা হবে।

backlink
প্রিয় পাঠক,কেমন আছেন?আমি ভালোই আছি।আজ আমি নতুন একটি পোস্ট নিয়ে হাজির হয়েছি।পোস্টটি হলো,এসইও ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক তৈরি করার উপায়।

এসইও ব্যাকলিংক কি?

যারা এসইও এর সাথে পরিচিত তারা অবশ্যই ব্যাকলিংক শব্দটি শুনেছেন।backlink এসইও এর অফ পেজ অপটিমাইজেশনের অংশ।backlink একটি ইংরেজি শব্দ।ইংরেজিতে ব্যাক মানে পেছনে অন্যদিকে লিংক মানে সংযোগ।
সহজ কথায়,একটি ওয়েবসাইটের লিংক অন্য একটি সাইটে থাকলেই backlink।উদাহরণ হিসেবে আমাদের ওয়েবসাইটের একটি লিংক যদি প্রথম আলোর ওয়েবসাইটে থাকে তাহলে আমাদের সাইটের জন্য একটি backlink।   
ব্যাকলিংক কত প্রকার?backlink দুই প্রকার।যথাঃ
১.ডুফলো ব্যাকলিংক।
২.নোফলো ব্যাকলিংক।

ডুফলো ব্যাকলিংক কি?

আসলে ডুফলো ব্যাকলিংককে বলা যায়  কার্যকরী backlink।বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন(গুগল,বিং,ইয়াহু ইত্যাদি) ডুফলো ব্যাকলিংককেই গুরুত্ব দিয়ে থাকে।ডুফলো এইচটিএমএল কোড<a href=”https://www.facebook.com”>facebook</a>

নোফলো ব্যাকলিংক কি?

নোফলো ব্যাকলিংককে সার্চ ইঞ্জিন গুরুত্ব দেয় না।নোফলো backlink সাইটকে স্পামিং এর হাত থেকে রেহাই করে। এজন্য প্রায় জনপ্রিয় ওয়েবসাইট নোফলো লিংক প্রদান করে। যেমনঃফেসবুক,টুইটার,পিন্টারেস্ট ইত্যাদি। নোফলো এইচটিএমএল কোড <a href=”https://www.facebook.com” rel=”nofollow”>facebook</a>

ব্যাকলিংক কেন গুরুত্বপূর্ণ

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার পেছনে বিভিন্ন উদ্দেশ্য থাকে।সে যে উদ্দেশ্যেই থাকনা কেন সব সাইটেরই ভিজিটর দরকার ।একটি ওয়েবসাইট খুলে রেখে দিলেন আর ভিজিটর হলো না,এমনটা হয়ত কেউই চায় না।

backlink তৈরি করলে সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাংক করে এবং সাইটে ভিজিটর পাওয়ার পাশাপাশি  সাইটের অথোরিটিও বাড়ে।তাই বলা যায় backlink খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এখন হয়ত আপনার প্রশ্ন থাকতে পারে যে, সার্চ ইঞ্জিন কেন ব্যাকলিংককে গুরুত্ব দেয়?সহজ একটি প্রশ্ন বটে!বাস্তব জীবনের কথা দিয়েই উদাহরণ দেয়া যাক,আপনার এলাকার নির্বাচনে যে পদপ্রার্থী বেশি ভোট পান,সেই নির্বাচিত হন।

ঠিক তেমনি সার্চ ইঞ্জিন এভাবেই নির্বাচন করে,কোন সাইটিকে সার্চ রেজাল্টে উপরে বা কোনটি নিচে রাখতে হবে।

কিভাবে শক্তিশালী ব্যাকলিংক তৈরি করা যায়

একটি সাইটে লিংক রেখে আসলেন আর ভালো backlink হয়ে গেলো,এমনটি নয়।প্রতিটি জিনিসের যেরকম মান রয়েছে তেমনি ব্যাকলিংকেরও মান রয়েছে।একটি শক্তিশালী ব্যাকলিংক তৈরি করতে হলে বিভিন্ন জিনিসের উপর নজর দেয়া উচিৎ।যা আমি নিচে কিছু বিষয় বর্ননা সহকারে দিয়ে দিচ্ছি।

ওয়েবসাইট অথোরিটিঃ

ভালো ওয়েবসাইট থেকে backlink  নিলে ব্যাকলিংক শক্তিশালী হয়।ধরুন,আপনি ১ টি ভালো ওয়েবসাইট থেকে backlink নিয়েছেন অন্যদিকে আপনার বন্ধু ১০০টি ব্যাকলিংক নিয়েছে,খুব দুর্বল ওয়েবসাইট থেকে।

এখন হতে পারে,আপনার ১ টি backlink আপনার বন্ধুর ১০০টির সমান।এখন ভাবুন ১০০টি ব্যাকলিংক করতে আপনার বন্ধুর কতই না কস্ট করতে হয়েছে।

বাস্তব জীবনের সাথে তুলনা করা যাক,আপনার গ্রামের মোড়ল যদি আপনাকে সমর্থন করে বা আপনাকে ভালোবাসে বা তার সাথে রাখে তাহলে আপনার ওই গ্রামে অন্যদের চেয়ে অনেক পাওয়ার বেড়ে যাবে নিশ্চয়ই।

অন্যদিকে যদি ১০ জন গ্রামের সাধারণ লোক আপনার বন্ধুর পাশে থাকে তাহলে আপনার ক্ষমতার সমান হতে পারে।তাহলে ভাবুন গ্রামের মোড়লের সাপোর্ট নেয়া কঠিন নাকি ১০ জন লোকের সাপোর্ট নেয়া কঠিন।      

ডোমেইন এক্সটেনশনঃ

ভালো ডোমেইন  এক্সটেনশন  ওয়েবসাইট থেকে ব্যাকলিংক নিন। যেমনঃ. gov .edu .org ইত্যাদি এগুলো ভালো ডোমেইন এক্সটেনশন।
gov-government  মানে  সরকারি ওয়েবসাইট,  edu-education মানে শিক্ষামূলক ওয়েবসাইট 
এই রকম ডোমেইন এক্সটেনশন ওয়েবসাইটে লিংক করার টেস্টা করুন।   

রিলেটেড কনটেন্ট/সাইটঃ

যদি আপনার ওয়েবসাইট টেক রিলেটেড সাইট হয় তাহলে অন্য কোনো টেক সাইটে backlink করুন।আরো ভালো হয় যদি রিলেটেড কনটেন্ট থেকে backlink নিতে পারেন।

যেমনঃ আমি যদি "আদার উপকারিতা" কোনো ওয়েবসাইটের পোস্টে backlink করি তাহলে সার্চ ইঞ্জিন ভালো গুরুত্ব দেবে না। যদি আমি "ব্যাকলিংক কি?" এই কনটেন্ট এ এই পোস্টের লিংক করে দেই তাহলে ভালো গুরুত্ব পাবে। 

এংকর টেক্সটঃ

এংকর টেক্সটকে গুগল খুব গুরুত্ব দেয়। এংকর টেক্সট এর মধ্যে আপনার কিওয়ার্ড দিয়ে দিন।"এখানে ক্লিক করুন,এখানে" এভাবে না দিয়ে "ব্যাকলিংক কি? বিস্তারিত জানুন" এভাবে দিতে পারেন।


ব্যাকলিংক তৈরি করার উপায়

ওয়েবসাইটে ব্যাকলিংক তৈরি করার জন্য বিভিন্ন উপায় রয়েছে তার মধ্যে আজ আমি কিছু সহজ উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।

প্রোফাইল ব্যাকলিংকঃ


এটি একটি সহজ প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আপনি সহজেই ব্যাক লিংক নিতে পারবেন। ইন্টারনেট জগতে হয়ত আপনি প্রোফাইল এর সাথে জড়িত।উদারহন হিসেবে,আপনার ফেসবুক প্রোফাইলকেই বলা যায়।ইন্টারনেটের বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রোফাইল করার সুবিধা রেখেছে।

আর এসব প্রোফাইলে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য (নাম,ঠিকানা,যোগাযোগ ইত্যাদি) দেয়া লাগে।তার মধ্যে ওয়েবসাইট লিংকও দেয়া যায়।আর এভাবেই পেতে পারেন আপনি  একটি backlink।আর এ ধরনের ব্যাকলিংককেই বলা হয়ে থাকে প্রোফাইল ব্যাকলিংক

গেস্ট পোস্টিংঃ


অন্য কোনো ওয়েবসাইটে পোস্ট করে তার মধ্যে আপনার সাইটের পোস্টের লিংক দিয়ে দিলে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি backlink।

ধরেন, আপনি একটি ওয়েবসাইটে লেখালেখি করেন এবং সেই সাইটে একটি পোস্ট করে তার মধ্যে আপনার ওয়েবসাইটের একটি লিংক দিয়ে দিলেন।আর এটিই হলো আপনার সাইটের জন্য গেস্ট পোস্ট ব্যাকলিংক
এ সুুবিধাটি মূলত আমরাও রেখেছি।আপনার যদি একটি বাংলা ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আমাদের সাইটে পোস্ট করে backlink নিতে পারেন।এজন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

ফোরাম পোস্টিংঃ 

আপনি হয়ত দেখেছেন,কোনো ওয়বেসাইটে প্রশ্ন করার পাশাপাশি উত্তরও দেয়া যায়।অনলাইনে বিভিন্ন প্রশ্ন-উত্তর সাইট রয়েছে যেগুলোতে লিংক দেয়ার সুবিধা রয়েছে।
এসব সাইটে প্রশ্নের উত্তরের মধ্যে লিংক দিয়ে backlink পাওয়া যায়।এসব উত্তর বা প্রশ্ন করার জন্য আপনাকে ওই সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে।
উদাহরণ হিসেবে বাংলা ভাষায় বাংলাদেশির প্রশ্ন-উত্তর সাইট বিষয় ডট কম।এই সাইটটি হয়ত অনেকেই চেনেন।কিন্তু এই সাইট নোফলো ব্যাকলিংক দেয় তাই কাজ করে কিছুই পাবেন না।
চাইলে quara তে কাজ করতে পারেন কারন এ সাইটটি প্রশ্ন-উত্তরে পৃথিবীতে প্রথম অবস্থানে রয়েছে এবং এ সাইটটি ডুফলো backlink দিয়ে থাকে।

ব্লগ-কমেন্টঃ

ব্লগ ওয়েবসাইটের কমেন্টে লিংক দিয়ে ব্যাকলিংক পাওয়া যায়।তবে অবশ্যই স্পাম করবেন না।প্রায় ভালো ব্লগ ওয়েবসাইট তাদের কমেন্ট এপ্রুভ সিস্টেম করে রাখে।

কমেন্ট করার সময় ভালোভাবে পড়ে কমেন্ট করবেন।পোস্টের সাথে মিল রেখে কমেন্ট করুন। বড় করে কমেন্ট করে এইচটিএমএল লিংক আকারে লিংক দিয়ে দিবেন।অবশ্যই পোস্টের সুনাম করবেন। এভাবে কমেন্ট করলে এপ্রুভ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

সোশ্যাল বুকমার্কিংঃ


ইন্টারনেটে লিংক বুকমার্ক করার জন্য বিভিন্ন ওয়েবসাইট রয়েছে।এসব লিংক আপনি দেখার পাশাপাশি পাবলিক ও দেখতে পারবে।
পাবলিক দেখার কারনে আপনার সাইটে ভিউ পাবেন তাছাড়া ডুফলো একটি backlink পাবেন।সকল সাইটে প্রথমে সাইন-আপ করে লিংক সাবমিট করলেই হয়ে যায়।

ব্যাকলিংক তৈরি করার জন্য বিভিন্ন উপায় রয়েছে।আমার কাছে উপরের উপায়গুলো আমার কাছে ভালো লাগে এবং সহজ মনে হয় তাই আপনাদের কাছে শেয়ার করেছি।পোস্টটি যদি আপনার উপকারে এসে থাকে তাহলে অবশ্যই ফেসবুকে শেয়ার করে দিবেন।
বিঃদ্রঃ এই ব্লগে বিভিন্ন কনটেন্ট,ভিডিও ও ছবি বিভিন্ন ওয়েবসাইট/বই থেকে নেওয়া হতে পারে।আমরা আপনার মূল্যবান কনটেন্ট,অন্যের উপকারের লক্ষে শেয়ার করে থাকি।তবে আপনার যদি কোনও আপত্তি থাকে,তাহলে আমাদের কাছে অভিযোগ করুন।আপনার কনটেন্ট সরিয়ে ফেলা হবে।

1 Response to "ব্যাকলিংক কি কেন তৈরি করার উপায়।ব্যাকলিংক সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা"

Contact Form

Name

Email *

Message *